Home / বিনোদন / ‘মুম্বাই ফিরছি, কারও বাপের ক্ষমতা থাকলে আটকে দেখাক’

‘মুম্বাই ফিরছি, কারও বাপের ক্ষমতা থাকলে আটকে দেখাক’

Spread the love

কঙ্গনা রনৌতের জ্বালাময়ী বক্তব্য নিয়ে শোরগোল এতদিন সামাজিকমাধ্যমে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন তা রাজপথে নেমেছে। ইতোমধ্যে তার বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে মুম্বাইয়ের রাজপথে তার ছবি জুতাপেটা ও ছেড়া হয়েছে।

তার মুম্বাই থাকার অধিকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন খোদ মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এবার শিবসেনার সেই প্রভাবশালী মন্ত্রীকেও তোপ দাগলেন ‘মণিকর্ণিকা’।

‘মহারাষ্ট্র কারও বাবার নয়, ক্ষমতা থাকলে আমার মুম্বাই আসা আটকে দেখাক কেউ। আমি বুক ফুলিয়ে বলছি যে, আমিও একজন মারাঠি। এবার আমার কিছু করার থাকলে করে নিন!’, টুইটারে এমনই বিস্ফোরক ঘোষণা দেন কঙ্গনা রানৌত।

এরপরই বলিউড ‘কুইন’ শিবসেনাকে তোপ দেগে বলেন, ‘দেখছি অনেকেই আমায় মুম্বাই না আসার জন্য হুমকি দিচ্ছেন। এই হুমকি শুনে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সামনের সপ্তাহেই আসব মুম্বাইতে। সেপ্টেম্বরের ৯ তারিখ আসছি। ফ্লাইট কখন ল্যান্ড করবে জানিয়ে দেব। কারওর বাপের ক্ষমতা থাকলে আমাকে আটকে দেখাক!’

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই একের পর এক আলোড়ন সৃষ্টিকারী মন্তব্য করে সবসময়ই আলোচনায় থাকছেন কঙ্গনা। ডান-বাম না দেখে যাকে পাচ্ছেন তাকেই মোক্ষম জবাব দিচ্ছেন। আমজনতা তো কোন ছাড়! করণ জোহর, আদিত্য চোপড়া, মহেশ ভাট, এমনকি খান-কাপুরদের মতো বলিউডের ডাকসাইটে তারকাদেরও ছাড় দিচ্ছেন না অভিনেত্রী। রাজনৈতিক ময়দান নিয়েও বিতর্কিত মন্তব্য করছেন। এসবের মধ্যেই টুইটারে আবারও বিস্ফোরক মন্তব্য মারাঠিদের নিয়ে। শুধু তাই নয়, বলিউডকে ‘মুসলিম শাসিত ইন্ডাস্ট্রি’ বলেও তোপ দাগেন অভিনেত্রী!

কঙ্গনার কথায়, ‘কারও যোগ্যতা নেই! সাহসও হয়নি গত একশ’ বছরে মারাঠিদের গর্ব নিয়ে বলিউডে কোনও সিনেমা বানানোর। আমি এই মুসলিম শাসিত ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের প্রাণ-ক্যারিয়ার সব বাজি রেখে শিবাজি মহারাজ আর রানি লক্ষ্মীবাঈকে নিয়ে সিনেমা বানিয়েছি। মহারাষ্ট্রকে নিয়ে যারা এখন এত গালভরা কথা বলছেন, সেসব ঠিকাদারকে গিয়ে জিজ্ঞেস করুন তো ওরা মহারাষ্ট্রকে নিয়ে কী করেছে?’

অন্যদিকে, শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ‘কঙ্গনার কোনও অধিকার নেই মুম্বাইতে থাকার। ও যা মন্তব্য করেছে, তার ভিত্তিতে ওর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপও নেওয়া যেতে পারে। ’ আর অনিল দেশমুখের এই মন্তব্যের পরই রণংদেহী কঙ্গনা ময়দানে নেমে হুংকার ছাড়েন যে, ‘মহারাষ্ট্র কারও বাবার নয়, আমাকে আটকে দেখাক ক্ষমতা থাকলে!’

তার বাক স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন কঙ্গনা। আর তার ভিত্তিতেই হরিয়ানার মন্ত্রী অনিল ভিজের মন্তব্য, ‘কঙ্গনাকে পুলিশি নিরাপত্তা দেওয়া উচিত। ওর বাকস্বাধীনতাকেও আটকানো উচিত নয়। ’ তথ্যসূত্র: বাংলা নিউজ